Wednesday , 16 October 2019
Breaking News

গাইবান্ধায় ধর্ষণ মামলার আসামি মেহেদী হাসান মর্ডান ৫ দিনের রিমান্ডে

( ব্যুরো চীফ) গাইবান্ধা:

আবারো ৬ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ করে দেশ-বিদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন গাইবান্ধার ইতিহাসে সবচেয়ে ন্যাক্কারজনক ঘটনার নায়ক তৃষা হত্যা মামলার আসামি মেহেদী হাসান মর্ডান। সম্প্রতি এক যুগের বেশি ( ১৪ বছর) কারাভোগ করেও এতটুকু বিবেকের দংশনে বিদ্ধ হয়নি তার বিবেক। হয়নি এতটুকু আত্নশুদ্ধী। বরং জেল থেকে বের হয়ে আরো বেশি বিশৃঙ্খল জীবন যাপন শুরু করেছিলেন। জড়িয়ে পড়েন মাদকের সঙ্গে। এরই মধ্যে মাদকের মামলাতেও আটক হয়েছিলেন বিকৃত মানষিকতার এই বখাটে। 

গত ১১ সেপ্টেম্বর ৬ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে মেহেদী হাসান মডার্ন ও তার সহযোগী সাব্বির হোসেন অপহরণ করে জোড়পূর্বক ধর্ষণ করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করলে পুলিশ গত শনিবার (০৫ অক্টোবর) সকালে মডার্ণকে ঢাকার দক্ষিণ কেরানিগঞ্জ থানার ইসলাম প্লাজার সামনে থেকে গ্রেফতার করে গাইবান্ধা সদর থানায় নিয়ে আসে। পরে দাপ্তরিক কাজ শেষে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

গতকাল সোমবার (৭ অক্টোবর)  দুপুরে গাইবান্ধার অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে  মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই নওশাদ আলী দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক নজরুল ইসলাম ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। কুখ্যাত মর্ডান শহরের খাঁ পাড়ার মাতৃসদন সংলগ্ন আজাদ আলীর ছেলে।

উল্লেখ্য, ২০০২ সালের ১৭ জুলাই গাইবান্ধা শহরের মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী সাদিয়া সুলতানা তৃষা স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে মডার্নসহ তিন বখাটে তাকে ধাওয়া করে। এসময় সম্ভ্রম বাঁচাতে পুকুরে ঝাপ দিয়ে (পানিতে ডুবে) মারা যায় তৃষা। এ ঘটনায় আসামিদের বিচারিক আদালতে মৃত্যুদণ্ড হলেও পরে আবেদনের প্রেক্ষিতে আপিল বিভাগ ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

Share

Leave a Reply

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com