Friday , 6 December 2019
Breaking News

পোশাক বিধি না মানায় স্কুল চলাকালীন প্যান্ট খুলে নেওয়া হল শিক্ষাথীদের

কলকাতা ব্যুরো প্রতিনিধি:
ন্যক্কারজনক বললেও কম বলা হয়। শুধুমাত্র একদিনের জন্যে স্কুলের পোশাক বিধি না মানায় স্কুল চলাকালীন প্যান্ট খুলে নেওয়া হল পড়ুয়াদের। বাধ্য হয়ে কয়েকঘণ্টা প্যান্ট ছাড়াই ক্লাসে বসে রইল ছাত্রীরা। অমানবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের বোলপুরের একটি স্কুলে। সোমবারের এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে গোটা এলাকায়। মঙ্গলবার বেসরকারি ওই ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের বাইরে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা। ইতিমধ্যেই শান্তিনিকেতন থানায় এবিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন তাঁরা। স্কুলের প্রিন্সিপালকে সরানোর দাবিতে বিক্ষোভেও ফেটে পড়েছেন অভিভাবকরা।
ঘটনার খবর এসে পৌঁছেছে শিক্ষামন্ত্রীর কাছেও। গোটা ঘটনায় ক্ষুব্ধ পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, ‘যা হয়েছে তা খুব খারাপ। গোটা বিষয়ের খোঁজ নেব।’ ঘটনার পরই নড়েচড়ে বসেছে শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনও। গোটা ঘটনার রিপোর্ট চেয়ে বীরভূমের জেলাশাসককে চিঠি দিচ্ছে কমিশন।ওই বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ, সোমবার প্রথম শ্রেণি থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত বেশ কয়েকজন পড়ুয়াকে প্যান্ট খুলিয়ে ক্লাস করানো হয়, এমনকী তাদের ওই অবস্থাতেই বাড়ি পাঠানো হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ দাবি করে, ওই পড়ুয়ারা নাকি স্কুলের ইউনিফর্ম পরে আসেনি। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে তারপরও কি এমন অমানবিক ‘শাস্তি’ দেওয়া যায়?
অভিভাবকরা অবশ্য দাবি করেছেন, ঠান্ডার জন্য ওই ছাত্রীরা লেগিংস প্যান্ট পড়ে যায় স্কুলে যায়। প্রিন্সিপালের নির্দেশে যেসব ছাত্রী লেগিংস পড়ে স্কুলে গিয়েছিল, তাদের প্রত্যেকের প্যান্ট খুলে রাখতে বাধ্য করেন শ্রেণি শিক্ষিকা। অভিভাবকদের অভিযোগ, লেগিংস পরা যাবে কি না সেবিষয়ে স্কুলের তরফে কোনও নির্দেশিকা জারি করা হয়নি।স্কুলের এক শিক্ষক অবশ্য পালটা দাবি করেন, বিদ্যালয়ের পোশাক বিধি ওই ছাত্রীরা মানেনি। তাই তাদের বলা হয়ে ছিল পোশাক পরিবর্তন করতে। পোশাক বিধি সম্পর্কে স্কুলের তরফে মৌখিকভাবে বলাও হয়েছিল। কিছু মানুষ বিদ্যালয়ের সুনাম নষ্ট করতে অপপ্রচার চালাচ্ছে।
তবে স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন ন্যক্কারজনক পদক্ষেপের নিন্দা উঠেছে সর্বস্তরে।

Share
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com